করোনা হাজারো নবীন জবিয়ানের অপেক্ষাকে করলো দীর্ঘায়িত


মহামারী হাজারো নবীন জবিয়ানের অপেক্ষাকে করলো দীর্ঘায়িত

"প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী" শব্দটা শোনার পর চোখের সামনে যা ভেসে ওঠে তা হলো জমকালো অনুষ্ঠান, প্রবল উৎসাহ, উদ্দীপনা, উৎসব আর অতীত দিন গুলোর রোমন্থন করা স্মৃতি । আরো সেটা যদি হয় জবির প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী তাহলে তো কথাই নেই । নানান আয়োজন ও আড়ম্বরতা যেন অন্যান্যদের থেকে স্বতন্ত্র করে রেখেছে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়কে । তাই প্রতি বছর ২০ অক্টোবর আসলেই নবীন, প্রবীণ সবার মাঝেই যেন উৎসব আমেজ বয়ে যায় । নতুন রুপে,রঙে সাজে প্রানের এ ক্যাম্পাস ।ভোরে পতাকা উত্তোলন, শোভাযাত্রা, বার্ষিক চারুকলা প্রদর্শনী, আলোচনা সভা, নাটক পরিবেশনা, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, প্রকাশনা সব মিলিয়ে যেন নিজেকে নতুন করে খুজে পাওয়া ।

২০০৫ সালের এই দিনে জাতীয় সংসদ ভবনে জগন্নাথ কলেজকে বিশ্ববিদ্যালয় হিসেবে ঘোষনা দেওয়া হয় । তারপর থেকে প্রতি বছর ২০ অক্টোবর "জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় দিবস" হিসেবে পালিত হয়ে আসছে । একজন নবীন জবিয়ান হিসেবে দিনটির জন্যে অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করে এসেছি সেই বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রথম দিনটি থেকে । কিন্তু ভাগ্যের নির্মম পরিহাস (কোভিড-১৯) এই দিনটি থেকে সরিয়ে নিয়ে এলো কত দুরে....!

‘কোভিড ১৯’ মহামারির উদ্ভূত পরিস্থিতিতে এই মাহেন্দ্রক্ষণকে এবার আমরা জাঁকজমকপূর্ণভাবে উদযাপন করতে পারছি না । মহামারী হাজারো নবীন জবিয়ানদের অপেক্ষাকে করলো আরো দীর্ঘায়িত । যে সময়টাতে আমাদের কথা ছিল প্রিয় ক্যাম্পাসের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদযাপন করার, সেই সময়টাতে বন্দি থাকতে হবে চার দেওয়ালে । কিন্তু আমি আশাবাদী । এক সময় চলে যাবে এই মহামারী, সবাই ফিরবো নিজ ক্যাম্পাসে । ঠিক নিজ ঘরে ফেরার মত করে । ততদিন ভালো থাকুক ২০ একরের ভালোবাসার ক্যাম্পাস আর সুস্থ্য থাকুক তার সন্তানতুল্য প্রত্যেক জবিয়ান ।

লেখক:
মোঃ নিলয় মল্লিক
সমাজবিজ্ঞান বিভাগ
জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়
১৫তম আবর্তন

No comments

Powered by Blogger.