স্বপ্ন পূরণের সিঁড়ি জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়


স্বপ্ন পূরণের সিড়ি জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়

২০ অক্টোবর । প্রায় ২৫ হাজার শিক্ষার্থীর প্রাণের স্পন্দন জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠা দিবস। ২০০৫ সালে জাতীয় সংসদ কর্তৃক অনুমোদিত হয়ে ঐতিহ্যবাহী জগন্নাথ সরকারি কলেজটি জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে রূপান্তরিত হয় । একই বছরের ২০ অক্টোবর পূর্ণাঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয় হিসেবে স্বীকৃতি পায় ।

২০ অক্টোবর, ২০২০ এ বিশ্ববিদ্যালয় হিসেবে সাফল্যের ১৫ বছর পূর্ণের পাশাপাশি ১৬২ বছরে পদার্পণ করছে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় । এই দিনটি নিয়ে একজন নবীন শিক্ষার্থী হিসেবে তুলে ধরছি আমার অনুভূতি এবং ক্ষুদ্র চিন্তাভাবনা ।

আমার স্বপ্ন পূরণের প্রথম ধাপ জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় । কিন্তু করোনা ভাইরাসের পরিস্থিতি অবনতির কারণে সেভাবে বিশ্ববিদ্যালয় জীবনের স্বাদ অস্বাদন করার সুযোগ পাইনি । আজকে আমি সত্যি আনন্দিত, পুলকিত আমার হৃদয় । কারণ, আজ আমি এমন একটি প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থী; যা উচ্চশিক্ষার বিভিন্ন ক্ষেত্রে অগ্রসরমান বিশ্বের সাথে সঙ্গতি রক্ষা ও সমতা অর্জন এবং জাতীয় পর্যায়ে উচ্চশিক্ষা, গবেষণা, আধুনিক জ্ঞানচর্চা ও পঠন-পাঠনের সুযোগ সৃষ্টি ও সম্প্রসারণের উদ্দেশ্যে সফলভাবে সম্পূর্ণ করতে পেরেছে খুবই স্বল্প সময়ে ।

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় একটি নবীন বিশ্ববিদ্যালয় হয়েও বিসিএস সহ বাংলাদেশের মোটামুটি সব জব সেক্টরগুলোতেই অভিনব সাফল্যের আলোড়ন তৈরি করেছে । যা আমার জন্য অনুপ্রেরণার একটি বিশাল জায়গা । অন্যদিকে একটি কলেজ থেকে সফলতর বিশ্ববিদ্যালয় হয়ে ওঠার পেছনের যে গল্প -তা আমাকে আত্মবিশ্বাসী এবং সংগ্রামী চেতনার হতে সহায়তা করবে এবং জীবনের বাস্তবতা শিখতে অনন্য ভূমিকা পালন করবে । আমি গর্বিত কারণ আমি নব্য জবিয়ান ।

আজ জবিকে দেয়ার মতো কিছু নেই ! রয়েছে অন্তরের অন্তস্থল থেকে অফুরন্ত ভালোবাসা, এতো কম সময়েও এতো পরিমাণে সাফল্যের জন্য শুভেচ্ছা আর শুভ কামনা  । ভবিষ্যতে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় যেনো অক্ষুণ্ণ সুনাম অর্জন করতে পারে সেজন্য আমরা নবীনরা নিজের সর্বোচ্চ দিয়ে চেষ্টা করবো, ইনশাআল্লাহ।

লেখক:
তানজিলা সুলতানা 
ইংরেজি বিভাগ 
১৫তম আবর্তন
জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়

No comments

Powered by Blogger.